ফ্রিতে ১০২৪ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ! পর্দার আড়ালে ভিন্ন কিছু

ক্লাউড স্টোরেজ

বর্তমানে অনেকেই অফলাইন স্টোরেজে নিজেদের গুরুত্বপূর্ন ডেটাগুলো না রেখে অনলাইন স্টোরেজ অর্থাৎ ক্লাউড স্টোরেজে রাখতে বেশি পছন্দ করে। কেননা ইন্টারনেট কানেকশন থাকলেই ডেটাগুলো যখন ইচ্ছা যেকোন ডিভাইস থেকে ব্যবহার করা যায়। কিন্তু ফ্রিতে খুব কম স্টোরেজ পাওয়া যায় যেমন গুগল ড্রাইভে মাত্র ১৫ জিবি।

তবেে আর্টিকেলটিতে এমন একটি অ্যাপের কথা বলবো যেটাতে আপনি ১০২৪ জিবি মানে ১ টেরাবাইট ক্লাউড স্টোরেজ ফ্রিতে ব্যবহার করতে পারবেন। শুনে খুব খুশি লাগছে, তাইনা? কিন্তু একটু দাঁড়ান! পুরো আর্টিকেল পড়লেই বুঝবেন অ্যাপটি কি ফাঁদ নিয়ে এসেছে ।

ফ্রিতে ১০২৪ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ(ভিডিওসহ)

সুবিধা

  • যত খুশি তত ইমেল অ্যাড্রেস ব্যবহার করে নতুন অ্যাকাউন্ট করতে পারবেন এবং প্রত্যেক অ্যাকাউন্টের সাথে ফ্রি ১০২৪ জিবি লাইফ টাইম স্টোরেজ।
  • ফাইল আপলোড এবং ডাউনলোড স্পিড বেশ ভালই। আপাতত এমনই দেখতে পেয়েছি।
  • অ্যান্ড্রয়েড, আইফোন এবং ডেক্সটপ ব্যবহারকারীদের জন্য অ্যাভেলেবল রয়েছে।

অসুবিধা

  • এটি একটি চায়না কোম্পানি।
  • কোম্পানিটি বেশি একটা প্রফেশনাল না।
  • এদের ডেটাসেন্টার চায়নার হংকং – এ অবস্থিত।
  • এরা প্রয়োজনে থার্ড পার্টির সাথে আপনার ডেটাগুলো ব্যবহার করতে পারে।

এটি ১০২৪ জিবি লাইফটাইমের জন্য ফ্রিতে প্রভাইড করে মার্কেটে থাকা অন্য সকল ক্লাউড স্টোরেজ সার্ভিস থেকে সবথেকে বড় সুবিধা দিচ্ছে। কিন্তু এর অসুবিধা দেখলে এটার ১০২৪ জিবি ফ্রি স্টোরেজ ফিকে পরে যায়। কেননা, সবকিছুর উর্ধ্ধে হলো ফাইলগুলোর সিকিউরিটি এবং প্রাইভেসি। কিন্তু এই ক্লাউড স্টোরেজ কোম্পানি এখানেই গড়মিল করে ফেলেছে। তাই আমি বলবো, যদি এই ক্লাউড স্টোরেজ ব্যবহার করেন তাহলে অবশ্যই নিজের ব্যক্তিগত ডেটাগুলো বাদে বিভিন্ন সফটওয়্যার, মুভি, টিউটোরিয়াল ইত্যাদি টাইপের পাবলিক ডেটাগুলো স্টোর করার জন্য ব্যবহার করুন।

ডাউনলোড এবং ইন্সটল

অ্যাপটি গুগল প্লেস্টোর এবং অ্যাপল স্টোর থেকে ফ্রিতে ডাউনলোড করা যাবে। সাথে ওয়েবসাইটের মাধ্যমেও ব্যবহার করতে পারবেন। নিচে প্রয়োজনীয় লিংক দেওয়া হলো-


আর্টিকেলটি সম্পর্কে আপনার মতামত নিচে কমেন্ট করুন। বন্ধুদের সাথে আর্টিকেলটি শেয়ার করুন এবং সোশ্যাল প্লাটফর্মে আমাদের ফলো করুন। টেকজাহাজের সাথে থাকার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ 😊।

সাগর মজুমদার
খুব ছোটবেলা থেকেই বিভিন্ন ইলেক্ট্রিক যন্ত্রপাতি খুটিয়ে দেখার শখ ছিল। এর জন্য অনেক বকাও খেয়েছি কিন্তু খুটিয়ে দেখার আনন্দের কাছে এটা কিছুই ছিল না। এভাবে আস্তে আস্তে টেকনোলজির সাথে খুব ভাল একটা সম্পর্ক গড়ে উঠে আর এই সম্পর্ক থেকে যা পেয়েছি, সেটা দিয়েই পূর্ণ করতে চলেছি টেকজাহাজকে। আশা করি আপনি আমার পাশে থাকবেন।